ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস মেয়র থাকার যোগ্য নয়: সাঈদ খোকন

তাপস মেয়র থাকার যোগ্য নয়-ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস মেয়র থাকার যোগ্য নয় বলে দাবি করেছেন সংস্থাটির সাবেক মেয়র ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। শনিবার (৯ জানুয়ারি) দুপুরে

কদম ফোয়ারার সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। দক্ষিণ সিটি করপোরেশন কর্তৃক ফুলবাড়িয়া সুপার মার্কেট-২ এ পরিচালিত উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসনের দাবিতে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে লিখিত বক্তব্যে সাঈদ খোকন

বলেন, মেয়র তাপস দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই দুর্নীতির বিরুদ্ধে গলাবাজি করে চলেছেন। আমি তাকে বলব রাঘব বোয়ালদের মুখে চুনপুটির গল্প মানায় না। দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন গড়তে হলে সর্বপ্রথম নিজেকে দুর্নীতিমুক্ত হতে হবে। তারপর চুনোপুটির দিকে দৃষ্টি দিতে হবে।

বর্তমান মেয়র তাপসের দুর্নীতির কথা উল্লেখ করে সাবেক মেয়র বলেন, ফজলে নূর তাপস দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের শত শত কোটি টাকা তার নিজ মালিকানাধীন মধুমতি ব্যাংকে হস্তান্তরিত করেছেন এবং এই শত শত কোটি টাকা বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করার মাধ্যমে কোটি

কোটি টাকা লাভ হিসেবে গ্রহণ করেছেন এবং করছেন। অপরদিকে অর্থের অভাবে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের গরীব কর্মচারীরা মাসের পর মাস বেতন পাচ্ছেন না। সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প অর্থের অভাবে বন্ধ হয়ে গেছে। এ ধরণের কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে মেয়র তাপস সিটি

করপোরেশন আইন ২০০৯ ২ ভাগের ২ অধ্যায়ের অনুচ্ছেদ ৯ (২).জ) অনুযায়ী মেয়র পদে থাকার যোগ্যতা হারিয়েছেন। উচ্ছেদকে অবৈধ উল্লেখ করে ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসনের দাবি জানিয়ে সাঈদ খোকন বলেন, বিনা নোটিশে বুলডোজার দিয়ে হাজার হাজার বৈধ দোকান গুড়িয়ে দেওয়ায়

তাদের স্বপ্ন পথে বসে গেল। বর্তমান একগুয়ে নগর প্রশাসন কোন যৌক্তিক নাগরিকের দাবির তোয়াক্কা করে না। আমি ঢাকা দক্ষিণ সিটির সাবেক মেয়র হিসেবে এই অবৈধ উচ্ছেদের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। একইসাথে আল্লাহর পরে আমাদের আশা ভরসার শেষ স্থান প্রধানমন্ত্রীর কাছে এই নিঃস্ব ও অসহায় বৈধ ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসনের আবেদন জানাচ্ছি।

অভিযোগ রয়েছে, মূলত সাঈদ খোকনের আমলেই অবৈধভাবে দোকানগুলো বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল। এ ছাড়া মানববন্ধনে বর্তমান মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসের নাম উল্লেখ করে আক্রমণাত্মক ভাষায় বিভিন্ন প্লাকার্ড নিয়ে বেশকিছু অল্প বয়স্ক তরুণকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।bd24live

Author: Admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *